1. kmohiuddin456@gmail.com : admin :
  2. dailybanglarrobi@gmail.com : Arif Mahamud : Arif Mahamud
  3. jahedulhaque24@gmail.com : Jahidul Hoque Masud : Jahidul Hoque Masud
রবিবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০, ০৩:৫১ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে, যোগাযোগ : ০১৭০৮ ৫১৫৫৩৫, প্রচারেই প্রসার # সকল প্রকার বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন - ০১৭১২ ৬১৮৭০০

সমস্যাটি কি শুধুই করোনাভাইরাসের লক্ষণ গন্ধ না পাওয়ার?

রিপোর্টার :
  • হালনাগাদ : সোমবার, ২৯ জুন, ২০২০
  • ৭০ Time View

স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা ডেস্ক:

নিশ্চয়ই জানেন, করোনাভাইরাসের অন্যান্য উপসর্গের মধ্যে ঘ্রানশক্তি হারানোও একটি। যা কোভিড-১৯ এর সবচেয়ে প্রাথমিক ও ব্যতিক্রমী একটি লক্ষণ। দেখা গেছে, হালকা থেকে মাঝারি ধরনের করোনাভাইরাসের প্রভাবের ক্ষেত্রে প্রথমে গন্ধ পাওয়ার ক্ষমতা লোপ পায় এবং পরবর্তীতে স্বাদের।
সিএনএন’র চিফ মেডিক্যাল করেসপন্ডেন্ট ডঃ সঞ্জয় গুপ্তা বলেন, ‘এটাকে বলা হয় অ্যানোজমিয়া (Anosmia), যার ফলে রোগীদের গন্ধ পাওয়ার ক্ষমতা নষ্ট হয়। যার সঙ্গে খাবারের স্বাদ, ক্ষুধাভাব কমে যাওয়া সম্পর্কিত।’

করোনাভাইরাসের ক্ষেত্রে প্রধান লক্ষণগুলো হলো জ্বর, কাশি, নিঃশ্বাসের সমস্যা। তবে সাম্প্রতিক সময়ের পরিসংখ্যান থেকে উঠে এসেছে, দক্ষিণ কোরিয়ায় অন্ততপক্ষে ৩০ শতাংশ করোনাভাইরাসের রোগী গন্ধ না পাওয়ার সমস্যায় ভুগেছেন। এছাড়া জার্মানিতে প্রতি তিনজনে দুইজনের মাঝেই অ্যানোজমিয়ার লক্ষণ প্রকাশ পেয়েছে।

অ্যামেরিকান অ্যাকাডেমি অব ওটাল্যারিঙ্গওলজি-হেড অ্যান্ড নেক সার্জারি এবং মার্কিন যুক্তরাজ্যের ইএনটি ইউকে জানাচ্ছে, স্বাদ ও গন্ধ না পাওয়ার সমস্যাটির সঙ্গে করোনাভাইরাসের আক্রান্তের সংযোগ থাকতে পারে।

যেভাবে বুঝবেন গন্ধ পাওয়ার ক্ষমতা লোপ পেয়েছে

গন্ধ না পাওয়ার বিষয়টি হুট করে চিহ্নিত করা এবং বোঝা সম্ভব হয় না। এই সমস্যাটিকে দ্রুত বুঝতে পারার জন্য ‘জেলিবিন টেস্ট’ নামক একটি পরীক্ষা বের করা হয়েছে। জেলিবিন হল এক ধরনের ফ্লেভার্ড সুগার ক্যান্ডি। তবে পরীক্ষাটি শুধু জেলিবিন নয়, অন্য যে কোনো খাবারের সাহায্যেও করা যাবে।

পরীক্ষাটির জন্য একহাতে একটি জেলিবিন নিয়ে অন্য হাতের সাহায্যে শক্তভাবে নাক চেপে ধরুন। এ অবস্থাতেই জেলিবিন মুখে দিয়ে চিবাতে থাকুন। জেলিবিনের মিষ্টিভাব পুরো মুখে ছড়িয়ে পড়লে ধীরে ধীরে নাক খুলুন। নাক খোলার সঙ্গে সঙ্গেই জেলিবিনের ফ্লেভার ও গন্ধ এসে ধাক্কা দিবে ইন্দ্রিয়তে। তখন বোঝা যাবে যে জেলিবিনটি আসলে কোন ফ্লেভারের ছিল, কারণ তখন তার গন্ধ নাক গ্রহণ করতে পারবে। বিজ্ঞানীরা এই প্রক্রিয়াটির নাম দিয়েছেন রেট্রো নাসাল অলফ্যাকশন।

করোনা ছাড়া গন্ধ না পাওয়ার অন্য কারণ

অবশ্যই সবক্ষেত্রে গন্ধ পাওয়ার ক্ষমতা হারানোর সঙ্গে করোনাভাইরাস সম্পর্কিত নয়। সাধারণ ঠাণ্ডার সমস্যা, সর্দি ও ফ্লু থেকেও এই সমস্যাটি দেখা দেয় এবং কিছুদিনের মধ্যে ঠিকও হয়ে যায়। এছাড়া নাসাল পলিপ, টিউমার, ট্রমাটিক ব্রেইন ইনজুরি অথবা হেড ট্রমা থেকেও এই সমস্যাটি দেখা দেয়।

তবে যদি কোনো কারণ ও সমস্যা ছাড়া হুট করেই গন্ধ পাওয়ার ক্ষমতা লোপ পায়, সেক্ষেত্রে সমস্যাটিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখতে হবে।

নিউইয়র্কের ল্যাংগন হেলথের স্লিপ ওটাল্যারিঙ্গওলজি বিভাগের ডিরেক্টর এবং নাক-কান-গলা বিশেষজ্ঞ ডঃ এরিক ভয়েজ বলেন, কারণ ব্যতীত গন্ধ না পাওয়ার সমস্যার ক্ষেত্রে রোগীর দ্রুত আইসোলেশনে যেতে হবে এবং অন্যদের কাছ থেকেও দূরে থাকতে হবে। সেই সঙ্গে যত দ্রুত সম্ভব করোনাভাইরাস শনাক্তকরণ পরীক্ষা করাতে হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

এই শাখায় অন্যান্য খবর
%d bloggers like this: