1. kmohiuddin456@gmail.com : admin :
  2. dailybanglarrobi@gmail.com : Arif Mahamud : Arif Mahamud
  3. jahedulhaque24@gmail.com : Jahidul Hoque Masud : Jahidul Hoque Masud
বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:৫৭ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে, যোগাযোগ : ০১৭০৮ ৫১৫৫৩৫, প্রচারেই প্রসার # সকল প্রকার বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন - ০১৭১২ ৬১৮৭০০

কলেজছাত্রীকে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা, গ্রেপ্তার ৫ মাগুরায়

রিপোর্টার :
  • হালনাগাদ : মঙ্গলবার, ১৮ আগস্ট, ২০২০
  • ৪৬ Time View

মাগুরা প্রতিনিধি:

মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলায় এক কলেজছাত্রীকে আগুন পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে তার সাবেক স্বামী ও স্বজনদের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় সোমবার (১৭ আগস্ট) বিকেলে মামলা হয়েছে। পুলিশ পাঁচ আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে।

অগ্নিদগ্ধ আঁখি খাতুনকে (২০) মুমূর্ষু অবস্থায় প্রথমে মাগুরা সদর হাসপাতালে, পরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে।

গত ১৫ আগস্ট সন্ধ্যায় উপজেলার কেড়িনগর গ্রামের বসতঘরের সামনে থেকে আঁখিকে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে তার বাড়ির লোকজন। এ ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছে। তবে আঁখির সাবেক স্বামী নাজমুল মোল্যার দাদি ও চাচি এটি ‘আত্মহত্যার’ চেষ্টা বলে জানিয়েছেন।

সরেজমিন গিয়ে জানা গেছে, কেড়িনগর গ্রামের আকরাম মোল্যার মেয়ে আঁখি ও প্রতিবেশি মাসুদ রানা মোল্যার ছেলে নাজমুল দুই বছর আগে পরিবারকে না জানিয়ে নিজেরা বিয়ে করে। ছয়মাস সংসার করার পর তাদের ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়।

সম্প্রতি তাদের মধ্যে আবার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। নাজমুলের পরিবারের পক্ষ থেকে বিয়ের জন্য প্রস্তাব পাঠালেও আঁখির বাবা তাতে রাজি হননি।

আঁখির দাদা রতন মোল্যা (৭০) জানান, সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে আঁখির ঘরের ১০ গজ দূর থেকে চিৎকার শুনে তিনি এগিয়ে যান। গিয়ে দেখেন আঁখির গায়ে আগুন জ্বলছে। ওড়না দিয়ে খুঁটির সঙ্গে আঁখির হাত-পা বাঁধা।

প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে পানি ঢেলে আগুন নিভিয়ে আঁখিকে উদ্ধার করে প্রথমে মাগুরা সদর হাসপাতাল নেয়।

ঢামেক হাসপাতালে আঁখির সঙ্গে থাকা তার মা নারগিস বেগম মোবাইল ফোনে বলেন, আবার বিয়ে করতে ব্যর্থ হয়ে নাজমুল ও তার স্বজনেরা আঁখির হাত-পা বেঁধে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে।

হাসপাতালে শুয়ে জড়িতদের নাম উল্লেখ করে আঁখি পুলিশের কাছে জবানবন্দি দিয়েছেন বলেও জানান তিনি।

নারগিস বেগম জানান, আঁখির শরীরের ৯০ ভাগ আগুনে পুড়ে গেছে। তার অবস্থা সংকটাপন্ন বলে চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন।

নাজমুলের বাড়ি গিয়ে দেখা গেছে, ঘর তালাবদ্ধ বাড়িতে বাবা-মা কেউ নেই। দাদি ফিরোজা বেগম (৭০), চাচি রত্না বলেন, নাজমুল আবার বিয়ে করতে চাইতো কিন্তু আখিঁর বাবা রাজি ছিল না। ঘটনার দিন বিকেলে আঁখিকে মারধর করে তার বাবা। পরে তাকে অন্যত্র বিয়ে দেওয়া হবে বলে ছেলে দেখতে যায়। বিষয়টি আশপাশের সবাই জানে। পরে আঁখি রাগে-ক্ষোভে গায়ে আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে।

আঁখির দাদা রতন মোল্যা বাদী হয়ে নাজমুল মোল্যাকে প্রধান আসামি করে সাতজনের নামে মহম্মদপুর থানায় মামলা করেছেন। পুলিশ আসামি কামরুল (৫০), মাসুদ (৪৫), হারেজ মোল্যা (৬২), আরিফ মোল্যা (২৬) ও বাবুল মোল্যা (৪৫) কে গ্রেপ্তার করেছে।

মহম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারেক বিশ্বাস জানান, গ্রেপ্তার পাঁচজনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার তদন্ত চলছে।

প্রিন্ট করুন

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

এই শাখায় অন্যান্য খবর
%d bloggers like this: