1. kmohiuddin456@gmail.com : admin :
  2. dailybanglarrobi@gmail.com : Arif Mahamud : Arif Mahamud
শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১২:৫৭ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে, যোগাযোগ : ০১৭০৮ ৫১৫৫৩৫, প্রচারেই প্রসার # সকল প্রকার বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন - ০১৭১২ ৬১৮৭০০

নেশার টাকার জন্য সন্তানদের জিম্মি করতেন মা

রিপোর্টার :
  • হালনাগাদ : রবিবার, ১১ অক্টোবর, ২০২০
  • ২১ Time View

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:

নেশার টাকার জন্য ছুরি ধরে নিজের সন্তানদের জিম্মি করতেন মা। শুক্রবার ওই মা তানিয়া খন্দকারকে গ্রেফতার করে সদর মডেল থানা পুলিশ। তানিয়ার মা রিনা বেগমের করা মামলায় গ্রেফতারের পর দুপুরে তাকে আদালতে পাঠানো হয়।
তানিয়া খন্দকার সদর উপজেলার নাটাই দক্ষিণ ইউপির বিল কেন্দুয়াইয়ের প্রবাসী জহিরুল হকের মেয়ে। রিনা বেগম তার মামলায় নিজের মেয়ে তানিয়াকে চোর, মাদকাসক্ত, বেহাইয়া ও উচ্চ বিলাসী হয়ে বেপরোয়া চলাফেরার কথা উল্লেখ করেন।

এ বিষয়ে তানিয়ার বড় বোন তাসলিমা আক্তার বলেন, ২০০৪ সালে পারিবারিকভাবে তানিয়াকে জেলার বিজয়নগরে বিয়ে দেয়া হয়। তানিয়া তিন মেয়ে ও এক ছেলে আছে।

তাসলিমা আরো বলেন, শ্বশুর বাড়ি সীমান্তবর্তী উপজেলা হওয়ায় মাদকের সঙ্গে জড়িয়ে যান। ফলে স্বামী, শ্বশুর ও শ্বাশুড়ীর সঙ্গে খারাপ আচরণ শুরু হলে দূরত্ব সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে স্বামীর সাথে বিচ্ছেদ হলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরে সন্তানদের নিয়ে বাবার বাড়িতে আশ্রয় নেয় তানিয়া। বাবার বাড়িতে আশ্র‍য় নিয়ে আরো বেপরোয়া হয়ে উঠে সে।

তিনি জানান, বাবার বাড়িতে আসার পর মায়ের কাছে ৪ সন্তান রেখে খারাপ প্রকৃতির লোকজনের সঙ্গে মিশে বেহায়াপনা ও উচ্চ বিলাসী চলাফেরা শুরু করেন তানিয়া। মা রিনা বেগম তাকে বাধা দিলেও কোনো কাজ হয়নি।

তাসলিমা বলেন, টাকা না থাকলে নেশার টাকার জন্য সে তার সন্তানদেরও জিম্মি করতো। তাদের গলায় ছুরি অথবা কখনো তাদের গলা চেপে ধরে আমার মায়ের কাছে টাকা দাবি করতো। এই অবস্থা দেখে মা টাকা দিয়ে দিতো। সর্বশেষ ঘটনার দিনও সে তার বড় মেয়ের উপর অত্যাচার করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সদর মডেল থানার এসআই সোহেল রানা বলেন, তানিয়ার মা বাদী হয়ে আদালতে একটি মামলা দায়ের করলে আদালত সদর মডেল থানাকে মামলাটি নথিভুক্ত করতে বলেন। সদর মডেল থানায় মামলাটি ৮ অক্টোবর নথিভুক্ত হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে শুক্রবার তানিয়াকে বিল কেন্দুয়াইয়ায় থেকে গ্রেফতারের পর আদালতে পাঠালে আদালত তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই শাখায় অন্যান্য খবর