1. kmohiuddin456@gmail.com : admin :
  2. printrajbd@gmail.com : admin1 :
  3. dailybanglarrobi@gmail.com : Arif Mahamud : Arif Mahamud
  4. jahedulhaque24@gmail.com : Jahidul Hoque Masud : Jahidul Hoque Masud
শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০২:৫৮ অপরাহ্ন
নোটিশ :
সংবাদকর্মী নিয়োগ চলছে, যোগাযোগ : ০১৭০৮ ৫১৫৫৩৫, প্রচারেই প্রসার # সকল প্রকার বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন - ০১৭১২ ৬১৮৭০০

খুলে নেয়া হচ্ছে ইট-লোহা,নদীগর্ভে বিলীন হচ্ছে যাত্রী ছাউনি

রিপোর্টার :
  • হালনাগাদ : মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই, ২০২০
  • ৮১ Time View

কক্সবাজার প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের পেকুয়ায় সুষ্ঠু তদারকি ও রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে করিমদাদ মিয়া ঘাটের একমাত্র যাত্রী ছাউনি। এ সুযোগে স্থানীয় প্রভাবশালী মহল ইট লোহা খুলে নিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, উজানটিয়া ইউপির করিমদাদ মিয়ার ঘাটের এ যাত্রী ছাউনিটির দুই ভিত্তি স্তম্ভ নদী ভাঙনের কারণে এরইমধ্যে নদীগর্ভে চলে গেছে। মূল কাঠামো কোনো রকম নদীর তীর ঘেঁষে দাঁড়িয়ে আছে। যা যেকোনো মুহূর্তে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যেতে পারে।

স্থানীয় বাসিন্দা শিমুল, সাবেক ইউপি সদস্য এহসান জানান, ১৯৮৭ সালে জেলা পরিষদের তত্ত্বাবধানে করিমদাদ মিয়া ঘাট সংলগ্ন এ যাত্রী ছাউনিটি স্থাপিত হয়। পেকুয়া উপজেলার সাথে পার্শ্ববর্তী উপকূলীয় এলাকা বদরখালী, কুতুবদিয়া ও মহেশখালী যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম করিমদাদ মিয়া ঘাট। এই নৌপথে প্রতিদিন কয়েক শতাধিক মানুষ চলাচল করার কারণে এ যাত্রী ছাউনির উপযোগিতা অধিক। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে অযত্ম অবহেলার ফলে যাত্রী ছাউনিটি নদী গর্ভে বিলীন হওয়ার উপক্রম হয়েছে।

স্থানীয় রাজনীতিবিদ রেজাউল করিম চৌধুরী মিন্টু বলেন, যাত্রী ছাউনিটি নদী পারাপার করা যাত্রীদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। নৌকার জন্য অপেক্ষারত মানুষ সেখানে বসে সময় কাটায়। এটি বিলীন হয়ে গেলে যাত্রীদের দুর্ভোগে পড়তে হবে।

স্থানীয় একটি সূত্র জানিয়েছেন, ভেঙে পড়া যাত্রী ছাউনিটি থেকে ফেরাসিঙা পাড়ার বাসিন্দা মো. মনু মিয়া প্রভাব খাটিয়ে লোহা ও ইট খুলে নিয়ে যাচ্ছে।

অভিযোগের বিষয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এম শহিদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, জেলা পরিষদের প্রতিষ্ঠিত এ যাত্রী ছাউনি সরকারি সম্পত্তি। এই স্থাপনা কেউ কুক্ষিগত করতে চাওয়াটা হবে অপরাধ। অভিযোগের বিষয়টি থানা প্রশাসনকে অবহিত করা হয়েছে।

পেকুয়া উপজেলা প্রকৌশলী জাহেদুল আলম বলেন, এমন একটা গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা বিলীন হওয়ার বিষয়ে আমরা অবগত ছিলাম না। শিগগির একটি প্রতিনিধি দল পরিদর্শনে পাঠানো হবে। ইট লোহা খুলে নওয়ার অভিযোগের বিষয়টা তদন্তের আওতাভুক্ত করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

এই শাখায় অন্যান্য খবর
%d bloggers like this: